Mokhles Chowdhury

                                                   আমার মা

বেগম শরিফা আজিজ চৌধুরী

                                                                                                         Ratnagarva Ma Awardee

Ratnagarva Ma
(Bengali: রত্নগর্ভা মা পুরস্কার)
 
Awarded for Recognition of mother's contribution for rearing their children who became worthy citizens.
Presented by Grand Azad Hotel
Country Flag of Bangladesh Bangladesh
Location Dhaka, Bangladesh
   

Ratnagarva Ma is an award (Bengali: রত্নগর্ভা মা পুরস্কার) which aims to recognize mothers and the important role that they play in society of Bangladesh. The mothers were awarded for the commendable role that they played in rearing their children who became worthy citizens of the country in later life.

In 2007 there were more than 8500 applicants who fulfilled the requirements of having at least three sons or daughters graduate and well established in their own fields for getting the award.

A judging panel assesses the applicants and selects 25 mothers for the award each year.[2] The award giving events attracts wide coverage from local media, culminating in a national presentation held in Dhaka each year on the occasion of Mother's Day in Bangladesh.

The award, funded by Grand Azad Hotel, included a crest, a certificate and a hamper of Azad Products. Besides, the winners will enjoy four-day three-night free stay at the Grand Azad Hotel along with a companion and a lifetime supply of different products of Azad Group of Companies. Abul Kalam Azad, chairman of company founded this award.


Past Award Recipients

  • 2008 - Sahida Begum and Khurshida Begum in special category.
  • 2006 - Anwara Begum (posthumous), Hazera Khatun, Rizia Ahmed, Alhaj Fozilatunnessa Bani, Begum Nurjahan Khan, Alhaj Jahan Ara Begum, Mrs Aktarunnessa, Alhaj Amatullah Begum, Alhaj Maksuda Begum, Monwara Begum, Mrs Fazilatunessa, Nurun Nahar Hadi, Prof Zohora Anis, Joinab Begum, Nurun Nahar Talukdar, Syeda Jannatul Ferdous, Prof Raihana Salam, Moriom Begum, Ayesha Khatun, Shahida Khanam, Begum Jahanara Islam, Nurun Nahar Begum, Lutfunessa Begum, Chemon Ara Begum, Begum Asia Khatun, Jahanara Begum and Begum Dilruba Islam.
  • 2005 - Late Shiria Begum, Begum Ershadunnesa, Dr. Manjusri Roy, Begum Selima Ahmed, Rahima Begum, Begum Rahima Khatun Bhuiya, Begum Taiyeba Nur, Begum Faozia Rahman, Monjila Begum, Begum Saleha Idris, Begum Gulshan Ara Aktar, Begum Sharifa Aziz Chowdhury, Mosammat Rowshan Ara Begum, Mosammat Saida Khanum, Syeda Rowshan Ara, Begum Lutfunnahar, Begum Badrunnesa Abdullah, Begum Asia Ahmed, Begum Momtaj Rashid, Sufia Sultana, Begum Arfanun Nesa, Momtaj Begum, Begum Ashrafunnesa, Begum Shahida Siddiq, Sufia Begum, Rowshan Ara Begum and Ayesha Aktar Khanum.
  • 2004 - Begum Rahima Khatun, Monwara Jalil, Roushan Ara, Zobeda Bar Chowdhury, Jahan Farida Moni, Shayesta Akhter, Begum Jahanara, Begum Azufa Khatun, Nasrin Noyeem, Mamataz Begum, Hosneara Kamal, Rahima Noor, Begum Farida Zaman, Saleha Begum, Saleha Chowdhury, Dilara Khanom, Fatema Begum, Arfaner Nesa, Begum Maniza Khanom, Nurunnahar Begum, Jahanara Begum, Nurjahan Haq, Razia Khatun, Mariyum Begum and Begum Halima Ahmed.

http://en.wikipedia.org/wiki/Ratnagarva_Ma_Award

 

 

 Saturday 11th December 2010

আজিজুর রহমান চৌধুরীর নবম মৃত্যূবার্ষিকী
 
ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় সংবাদপত্র 'সাপ্তাহিক প্রেক্ষিত' এর প্রথম প্রধান সম্পাদক আলহাজ আজিজুর রহমান চৌধুরীর নবম মৃত্যূবার্ষিকী পালিত হবে আগামী ১০ই ডিসেম্বর।
মরহুম আজিজুর রহমান চৌধুরী ছিলেন হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার কাটিহারার প্রথম সমাজপতি। তিনি বামৈ ২৪ ও ২৫ নম্বর পরগনার জমিদারীর উত্তরাধিকারী সমাজদরদী 'টাকা মিয়া চৌধুরী' নামে খ্যাত মরহুম জরদ আলী চৌধুরীর বড় নাতি। পাকিস্তানের স্বাধীনতা পূর্বকালে আজিজুর রহমান চৌধুরীর পিতা মরহুম শামসুল হুদা চৌধুরী ভারতের শিলাইদহে ব্যবসা করতেন। মরহুম এ আর চৌধুরী ১৯৬৫ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন চা এষ্টেটে ম্যানেজার ও 'হেড টিলা বাবু' ছিলেন। বিদ্যোৎসাহী আজিজুর রহমান এলাকায় স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠাসহ লাখাই উপজেলা সদর দপ্তর স্থাপন আন্দোলন, হবিগঞ্জ ও সিলেট বিভাগের উন্নয়ন, রাস্তাঘাট নির্মান, ও বিদ্যুতায়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন। জীবদ্দশায় তিনি বামৈ মডেল হাই স্কুলের গভর্নিং বডি ও বামৈ কাটিহারা সিদ্দিকীয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসা পরিচালনা পরিষদের সদস্য ছিলেন। আলহাজ আজিজুর রহমান চৌধুরী ফাউন্ডেশন হবিগঞ্জ জেলার কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি দিয়ে আসছে। হবিগঞ্জে আলহাজ্ব আজিজুর রহমান নামে একটি সড়ক আছে। ২০০১ সালে আলহাজ আজিজুর রহমান চৌধুরী পবিত্র হজ্জ পালন শেষে দেশে প্রত্যাবর্তন করার পরে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫শে রমজান, ১০ ডিসেম্বর ইন্তেকাল করেন। কাটিহারা পারিবারিক কবরস্থানে তিনি শায়িত রয়েছেন। মরহুমের জন্য তার স্বজনরা সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

 http://www.probashibarta.com/bn/details.php?NewsId=15803&cat=27&NewsDate=2010-12-11

 

 

The Daily Khowai.

51/51A.Resourceful polton city,Polton.Dhaka-1000.

December 12, 2009

আজিজুর রহমান চৌধুরীর ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আশির দশকের শেষে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মৃত্যু অবধি  ঢাকার ‘সাপ্তাহিক প্রেক্ষিত’-এর প্রধান সম্পাদক আলহাজ্ব আজিজুর রহমান চৌধুরীর ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী গত বৃহস্পতিবার পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার কাটিহারায় মরহুমের কবর জিয়ারত ও দোয়া অনুষ্ঠান এবং গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা কাটিহারা জামে মসজিদ, লন্ডনে বারকিং জামে মসজিদ ও ইস্ট লন্ডন জামে মসজিদে পৃথক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার কাটিহারার প্রথম সমাজপতি মরহুম আজিজুর রহমান চৌধুরী বামৈ ২৪ ও ২৫ নম্বর পরগনার সাবেক জমিদারীর উত্তরাধিকারী ‘টাকা মিয়া চৌধুরী’ ডাকনামে সমধিক পরিচিত মরহুম জরদ আলী চৌধুরীর বড় নাতি। বামৈ মডেল হাই স্কুল ও বামৈ কাটিহারা সিদ্দিকীয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদের সদস্য মরহুম আজিজুর রহমান চৌধুরী পবিত্র হজব্রত পালন শেষে দেশে প্রত্যাবর্তনের এক বছরের মধ্যে ২০০১ সালের ১০ ডিসেম্বর ইন্তেকাল করেন। রাষ্ট্রপতির সাবেক উপদেষ্টা এম মোখলেসুর রহমান চৌধুরীর পিতা মরহুম এ আর চৌধুরী লাখাই উপজেলা সদর দপ্তর স্থাপন আন্দোলনসহ এলাকার উন্নয়নে বিশেষ করে শিক্ষার উন্নয়ন, রাস্তাঘাট ও বিদ্যুতায়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন।

 

 

প্রবাসী বার্তা ডট কম ১২ ডিসেম্বর ২০০৯

পিবিসি নিউজ: আশির দশকের শেষে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মৃত্যু অবধি ঢাকার 'সাপ্তাহিক প্রেক্ষিত'-এর প্রধান সম্পাদক আলহাজ্ব আজিজুর রহমান চৌধুরীর ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী ১০ই ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার পালিত হয়েছে । এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার কাটিহারায় মরহুমের কবর জিয়ারত ও দোয়া অনুষ্ঠান এবং আজ ১১ই ডিসেম্বর ২০০৯ শুক্রবার বাদ জুমা কাটিহারা জামে মসজিদ, লন্ডনে বারকিং জামে মসজিদ ও ইষ্ট লন্ডন জামে মসজিদে পৃথক পৃথক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার কাটিহারার প্রথম সমাজপতি মরহুম আজিজুর রহমান চৌধুরী বামৈ ২৪ ও ২৫ নম্বর পরগনার সাবেক জমিদারীর উত্তরাধিকারী 'টাকা মিয়া চৌধুরী' ডাকনামে সমধিক পরিচিত মরহুম জরদ আলী চৌধুরীর বড় নাতি। বামৈ মডেল হাই স্কুল ও বামৈ কাটিহারা সিদ্দিকীয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদের সদস্য মরহুম আজিজুর রহমান চৌধুরী পবিত্র হজ্জব্রত পালন শেষে দেশে প্রত্যাবর্তনের এক বছরের মধ্যে ২০০১ সালের ১০ই ডিসেম্বর ইন্তেকাল করেন। রাষ্ট্রপতির সাবেক উপদেষ্টা এম মোখলেসুর রহমান চৌধুরীর পিতা মরহুম এ আর চৌধুরী লাখাই উপজেলা সদর দপ্তর স্থাপন আন্দোলনসহ এলাকার উন্নয়নে বিশেষ করে শিক্ষার উন্নয়ন, রাস্তাঘাট ও বিদ্যুতায়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন।